কি ধরনের নিশ বা টপিক নিয়ে Blogging niche তৈরি করবেন  ব্লগিং নিশ আইডিয়া 2021

Table of Contents

কি ধরনের নিশ বা টপিক নিয়ে ব্লগ তৈরি করবেন  ব্লগিং নিশ আইডিয়া 2021

সেরা ব্লগিং নিশ অনলাইনে আয় করার জন্য, আপনি যদি ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করতে চান অথবা ব্লগিং Blogging niche করে অনলাইনে আয় করতে হলে অবশ্যই আপনাকে ব্লগিং নিশ সম্পর্কে জানতে হবে।

কেননা ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করতে হলে আপনাকে অবশ্যই একটি নির্দিষ্ট বিষয় বা টপিক নিয়ে কাজ করতে হবে। ধরে নিলাম আপনি ব্লগ শুরু করবেন, তাহলে আপনার ব্লগের জন্য এমন একটি নিশ বেঁচে নিতে হবে,

যে ব্লগিং নিশ অনলাইনে অনেক জনপ্রিয়, প্রচলিত বা যেই বিষয় গুলি নিয়ে ইউজারগন ভালো পরিমানে গুগল সার্চে সার্চ করে।

নিস কি নিশ মার্কেটিং কি Niche কি নিশ কেন গুরুত্বপূর্ণ নিস সাইট কি নিশ কত প্রকার ১০ টি নিশ এর নাম অ্যামাজন নিশ সাইট ১০ টি নিশ এর নাম নিশ কি নিশ বাছাই নিশ মার্কেটিং কি নিশ সাইট সিলেকশন নিশ সিলেকশন Niche কি নিশ কত প্রকার নিশ কি নিশ মার্কেটিং কি ১০ টি নিশ এর নাম নিশ কত প্রকার

Blogging niche

SpaceX launches first all_civilian crew into orbit without..

মা হওয়ার গুঞ্জন কাজল প্রথম বিবাহ বার্ষিকীর আগেই News

.Pregnant Kajal to Kajal Pregnant News

.2 BIG news for fans, BCCI to allow spectators in IPL 2021 phase

 

 

What is blog niche? ব্লগিং নিশ (Blog niche) মানে, আপনার ব্লগের বিষয় বা টপিক, যেই বিষয় নিয়ে আপনি ব্লগ তৈরি করবেন এবং যে বিষয় নিয়ে আপনি সেই ব্লগে লেখালেখি করবেন। … সাধারণত, “Blogging” এবং “online income”, এই দুটোই অনেক ভালো ও লাভজনক niche বা বিষয়।

ব্লগে ভবিষ্যতে কোন টপিকের উপর আর্টিকেল লেখা হবে তা আপনার ব্লগিং নিশ এর উপর নির্ভর … ধরনের আর্টিকেল প্রকাশ করা হয়, তাকে সেই সাইটের ব্লগ নিশ (bloge niche) বা ব্লগ টপিক বলে।

কি বিষয়ের উপর ব্লগ তৈরি করবেন? সাধারণত ব্লগ সাইটে যে বিষয়ের উপর বিভিন্ন ধরণের আটিকেল বা পোস্ট করা হয় তাকে সেই ব্লগ বা সাইটের নিশ বলা হয়। অথাৎ আপনার ব্লগের টপিক কে সেই

লগিং কি ? ব্লগ এর প্রকার ভেদঃ; কিভাবে একটি ব্লগ শুরু করবেন? ১। যেভাবে ওয়েব সাইট এর নিশ (ক্যাটাগরী) নির্বাচন করবেন। ক)

আপনিও কি জানতে চাচ্ছেন, “২০২০ এ কিভাবে ব্লগিং শুরু করবেন” ? … আমরা যেই নিশ নিয়ে ব্লগ তৈরি করি, সেই নিশ বা বিষয়ের সাথে জড়িত টপিক (topics) গুলি নিয়েই ব্লগে আর্টিকেল লিখি

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

হে পারাযায় 5000$ 1000$ ডলার

ফ্রি ব্লগ থেকে আয়?

এটাও সম্বব

 

নিশ (Niche) সিলেকশন কি?

নিশ (Niche) সিলেকশন কি?

একজন ইন্টারনেট প্রফেশনাল (Internet Professional) হওয়ার জন্য নিশ একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। হোক সেটা ব্লগিং (Blogging), অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate marketing), সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (Social media marketing) বা ফ্রিল্যান্সির (Freelancing)। উদাহরণ স্বরূপ বললাম, আমি ফ্রিল্যান্সার হতে চাই। এজন্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস আপওয়ার্ক-এ

একাউন্ট তৈরি করলাম। তারপর…? একাউন্ট ক্রিয়েট করলেই শেষ! এরকম হাজার হাজার ইনঅ্যাকটিভ একাউন্ট রয়েছে মার্কেটপ্লেসগুলোতে। যারা একাউন্ট করেছে কিন্তু কোন কাজ পারে না। কোন কাজ করে না।

কোন একটা কাজ তো করতে হবে! নাকি আপওয়ার্ক এমনি এমনি পেমেন্ট দিয়ে দিবে! আর আপনি ঘরে বসে তা খাবেন। আর্টিকেল রাইটিং (Article writing) অথবা গ্রাফিক্স ডিজাইন (Graphics design) অথবা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট

(Web development) যে কোন একটা কাজ করতে হবে। আমি কোন কাজটা করবো সেটা আগে ঠিক করে নিতে হবে। তারপর সে কাজটা শিখতে হবে। সেভাবে আপওয়ার্ক-এ আমার প্রোফাইল সাজাতে হবে। সেই নির্দিষ্ট কাজগুলোতে বিড করতে হবে। তবেই তো ফ্রিল্যান্সার। আর কোন কাজটা করবেন সেই কাজটা-ই হলো নিশ Blogging niche

নিশ সিলেকশনের গুরুত্ব

নিশ সিলেকশনের গুরুত্ব

আমরা এখানে ব্লগের নিশ নিয়ে আলোচনা করবো। উদাহরণ দিতে গিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এর নিশের কথা উল্লেখ করলাম। তবে যে কাজের জন্যই নিশ সিলেক্ট করেন, এই প্রসেস এর মাধ্যমেই করতে পারবেন। যেমন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ই-মেইল মার্কেটিং ইত্যাদির জন্য নিশ সিলেকশন। আর পুরো ইন্টারনেট জগতে রয়েছে হাজার হাজার নিশ।

Who is the Washington Football Team QB? Taylor Heinicke

যেমন_ Makeup, Fashion , Fashion Accessories, Cosmetics, Beauty Products | Extreme Workouts | Body Building | Anti-Aging Products | Meditation | Inspirational Books | Inspirational Speaking |

Volunteering | Dating | Relationship Tips | Wedding Planning  Marriage Advice | Video Games | Board Games  Jewelry for Her

সহজ বাংলায় নিশগুলো বলতে গেলে এরকম হবে- কুকিং ,ট্রাভেল  টিপস এন্ড ট্রিকস  স্বাস্থ্য | শিক্ষা | আত্ম উন্নয়ন | প্রযুক্তি | শিশু লালন পালন  এন্টারটেইনমেন্ট | খেলাধুলা

প্রোডাক্ট রিভিউ | পার্সোনাল ভ্লগ | আর্ট | নিউজ | কিডস লার্নিং

ফান ইত্যাদি। এভাবে বলে শেষ করা যাবে না। এরকম হাজারো নিশ থেকে যে কোন একটি নিয়ে কাজ করতে পারেন। এর প্রত্যেকটির ভিতর রয়েছে আরো অনেক অনেক টপিক বা নিশ। Blogging niche

নিশ সিলেকশনের পদ্ধতি

নিশ সিলেকশনের Niche selection জন্য আমরা দুটি ধাপ অনুসরণ করবো। একটি হলো মানসিকভাবে (Mentally) স্থির করা। অপরটি হলো টেকনিক্যালভাবে (Technically) নির্ধারণ করা। Blogging niche

কিওয়ার্ড রিসার্চ

গুগলে হার্ডওয়্যার রিলেটেড কতগুলো কিওয়ার্ড লিখে সার্চ করুন। হার্ডওয়্যার সম্পর্কে আপনার মনের মধ্যে যা আসে

তা-ই লিখে গুগলে সার্চ দিন। সার্চ করার সময় কোন একটি শব্দ লিখার পর গুগল Blogging niche

যে সাজেশনগুলো দেয় সেগুলো খেয়াল করুন। সেখান থেকে আরো নতুন কিওয়ার্ড আইডিয়া (Keyword idea) পাবেন। উদাহরণ স্বরূপ কিওয়ার্ডগুলো হতে পারে এরকম Blogging niche

হার্ডওয়্যার কি হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার এর মধ্যে পার্থক্য monitor power problem best hard disk in bd | printer problem | কম্পিউটার হার্ডওয়্যার পরিচিতি Cpu এর বিভিন্ন অংশের নাম হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার মিলে কি তৈরি হয় |computer hardware components, computer hardware pdf | types of computer hardware computer hardware parts and functions Blogging niche

এধরনের কিওয়ার্ড লিখে গুগলে সার্চ করুন। প্রথম পৃষ্ঠায় যে রেজাল্টগুলো .Search results. আসবে সেসব সাইটে যান। গিয়ে দেখুন তারা কি ধরণের কনটেন্ট দিয়েছে। কনটেন্টে কি তথ্য দিয়েছে। শিরোনাম কিভাবে লিখেছে। লেখার সাথে ভিডিও, ছবি বা কি কি মিডিয়া সংযুক্ত করেছে। তারা যে কনটেন্ট দিয়েছে, Blogging niche

Blogging niche

আপনি তার চেয়ে ভালো কনটেন্ট তৈরি করতে পারবেন কিনা। যদি মনে হয় আপনি আরো ভালো কনটেন্ট তৈরি করতে পারবেন তাহলে বুঝে নিন নিশটি আপনার জন্য। তাদের কনটেন্টের কোন জায়গায় সমস্যা রয়েছে। সেটা খুজে বের করুন। দেখুন কোন সমস্যা আছে কিনা। হোক সেটা একটা বানানগত ভুল। হোক সেটা ডিজাইনের কোন সমস্যা। হোক সেটা আর্টিকেল লেখায় উপস্থাপনার সমস্যা। এসব ভুল আপনার চোখে ধরা পড়লে বুঝবেন নিশটি আপনার জন্য। Blogging niche

সেই সাথে এই কিওয়ার্ডগুলো ইউটিউবের সার্চবারে লিখে সার্চ করুন। সংশ্লিষ্ট কতগুলো ভিডিও দেখুন। সেখান থেকে ধারনা নিন। ইউটিউবের ভিডিওগুলোতে ইউটিউবাররা কি ধরনের তথ্য দিচ্ছে। সাইটগুলোর কনটেন্ট আর ইউটিউবের কনটেন্ট এর মধ্যে পার্থক্য বের করুন। আইডিয়া এক্সট্রাক্ট করুন। Blogging niche

এবার গুগল ক্রোম (google chrome) ব্রাউজারে moz extension লিখে সার্চ করুন। এখান থেকে এক্সটেনশনটি ব্রাউজারে ইন্সটল করে নিন। তারপর ব্রাউজার রিস্টার্ট করে আবার গুগলে যান। সার্চ বক্সে “কম্পিউটার যন্ত্রাংশের নাম ও দাম” লিখে সার্চ করুন। অর্থাৎ আপনার কিওয়ার্ডগুলো লিখে সার্চ করুন। সার্চ রেজাল্ট আসলে একটু খেয়াল করে দেখুন।

কিওয়ার্ড রিসার্চ Blogging niche

সার্চ বক্সের ডান পাশে Monthly searches: 0 | Blogging niche  CPC: $0 দেখাচ্ছে (আপনার প্রদত্ত কিওয়ার্ডের ক্ষেত্রে বাস্তবে এগুলোর ভ্যালু ভিন্ন হতে পারে। উদাহরণ হিসেবে এখানে 0 দেখানো হয়েছে)। এখান থেকে এই কিওয়ার্ডটি মাসে কতবার (Monthly search volume) গুগলে সার্চ করা হয় তা জানতে পারবেন। আপনি যে বিষয়টি নিয়ে কাজ করতে চান Blogging niche

সেই কী-ওয়ার্ডটির মাসিক সার্চ ভলিউম জানতে পারলেন। আর সিপিসি (CPC- Cost Per Click) কত তা জানতে পারবেন। মানে টাকায় এর মূল্য কত বা এই কিওয়ার্ডটি নিয়ে কাজ করলে কিরকম ইনকাম হতে পারে তা জানতে পারবেন। দেখা যাচ্ছে মাসে একবারও এই কিওয়ার্ডটি সার্চ করা হয় না। কী-ওয়ার্ডটির সিপিসিও শূন্য। অর্থ দাড়াচেছ এই নিশটি নিয়ে কাজ না করাই ভালো

কিওয়ার্ড রিসার্চ Blogging niche

 

আবার অনেকেই বেশি সার্চ ভলিউম এবং হাই সিপিসি কিওয়ার্ড বা নিশ সিলেক্ট করেন। এটাও উচিত হবে না। সার্চ ভলিউম বেশি হলে কম্পিটিটরও বেশি। অভিজ্ঞরা সেগুলো নিয়ে কাজ করছে।

তাদের সাথে পাল্লা দিয়ে একজন নিউবি তার সাইটকে র‌্যাঙ্ক করাতে পারবে না। তাই নতুন হিসেবে মোটামুটি সার্চ ভলিউম এবং সিপিসির নিশ নিয়ে কাজ করতে হবে। টেকনিক্যাল

 

পর্যায়ের এই কাজটি মোজবারের মাধ্যমে এখানে করে দেখানো হয়েছে। এটাই ডিসিশন নেয়ার জন্য পূর্ণাঙ্গ নয়। অর্থাৎ এই মোজবারের মাধ্যমে কী-ওয়ার্ড ভলিউম বা সিপিসি দেখে সিদ্ধান্ত নিবেন না। এটা একেবারেই প্রাথমিক ধাপ। আপনার আরো গভীরে গিয়ে এনালিসিস করতে হবে Blogging niche

আর এটি ফ্রি একটি টুল। এরকম আরো অনেক টুল (Keyword Research Tools) রয়েছে।

যেমন- Blogging niche গুগল কী-ওয়ার্ড প্লানার | Google keyword planner উবার সাজেস্ট | Uber suggest ওয়ার্ড স্ট্রীম | Word Steam এএইচরেফস | Ahrefs গুগল ট্রেন্ড | Google Trend এসইএমরাশ | Semrush ওয়ার্ড ট্রেকার | Word tracker কী-ওয়ার্ড শীটার | Keyword sheeter কী-ওয়ার্ড সার্ফার | Keyword surfer কোয়েশ্চনডিবি | Question DB KWfinder সার্চ ভলিউম | Search volume দ্য হোথ | thehoth

 

এই টুলগুলো দিয়ে আপনার নিশটির অবস্থা জেনে নিবেন। সেই সাথে এসব টুল ব্যবহারে আরো অনেক নতুন বিষয় নিজেই জানতে পারবেন। এগুলো বেশির ভাগ ফ্রি। এমনকি ফ্রিতে এগুলো ব্যবহার করে যথেষ্ট পরিমাণ তথ্য বের করে নিয়ে আসতে পারবেন।

কিওয়ার্ড নিয়ে গবেষণা করতে পারবেন। পারলে টুলগুলোর পেইড ভার্সন কিনে নিয়ে রিসার্চ করতে পারেন। পেইডটুল হলে অনেক বেশি তথ্য পাবেন। অনেক কম সময়ের মধ্যে ডিসিশন নিয়ে নিতে পারবেন। আমার পরামর্শ হলো, প্রথমেই টুল কিনতে যাবেন না।

 

প্রথমে ফ্রি ভার্সনে সময় দিন। দেখুন কিভাবে টুলগুলো ব্যবহার করতে হয়। তারপর প্রয়োজন বোধ করলে কিনে নিবেন। কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য ইউটিউবে অনেক টিউটোরিয়াল পারবেন। Blogging niche

 

সময় নিয়ে এগুলো দেখবেন। ভিডিওগুলোতে এসব ফ্রি টুলগুলো কিভাবে ব্যবহার করতে হয় বিস্তারিত দেখানো হয়েছে। সেগুলো থেকে কিওয়ার্ড রিসার্চ শিখতে পারবেন। কিওয়ার্ড রিসার্চের জন্য বাছাই করা কতগুলো ভিডিও লিংক রাখা রয়েছে এখানে, দেখে নিবেন। অবশ্যই সময় নিয়ে দেখবেন। তাড়াহুড়ো করবেন না। স্কিপ করে যাবেন না।

 ব্লগিং নিশ কি? What is blog niche?

ব্লগিং নিশ (Blogging niche) মানে, আপনার ব্লগের বিষয় বা টপিক, যেই বিষয় নিয়ে আপনি ব্লগ তৈরি করবেন এবং যে বিষয় নিয়ে আপনি সেই ব্লগে লেখালেখি করবেন। আপনারা হয়তো অবশই লক্ষ্য করেছেন, যে আমি এই ব্লগে বিশেষ ভাবে ব্লগিং এবং অনলাইন ইনকাম এর সাথে জড়িত বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে থাকি। সাধারণত, “Blogging” এবং “online income”, এই দুটোই অনেক ভালো ও লাভজনক niche বা বিষয়।

কীভাবে ব্লগিং নিশ (Blogging niche) পছন্দ করবেন?

আপনি কিভাবে একটি ব্লগিং নিশ পছন্দ করবেন তা নির্ভর করবে সম্পূর্ণ আপনার উপর কেননা আপনি সেই বিষয়ে ব্লগ তৈরি করুন যে বিষয় সম্পর্কে আপনার অধিক ধারণা রয়েছে এবং যে বিষয়ে কাজ করতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।

এখানে ব্লগিং নিশ পছন্দ করার বিষয়টি এমন নয়! আপনি যে বিষয়ে জানেন না অথবা বোঝেন না এবং যে বিষয়ে আপনার ধারণা নেই সেটি নিয়ে কাজ করা শুরু করবেন না। কেননা এতে করে হয়তো কয়েকটি পোস্ট, কয়েকটি কনটেন্ট পাবলিশ করার পর আপনার ব্লগিং জগতে কন্টেন আর্টিকেল রাইটিং পাবলিশ করার ইচ্ছা থাকবেনা কেননা আপনি সে পর্যন্ত হাঁফিয়ে যাবেন।

তাই আমি রিকমেন্ড করব আপনি যে বিষয়টি নিয়ে বা টপিক নিয়ে বেশি উৎফুল্ল যেটা করতে আপনার ভালো লাগে পার্সোনাল লাইফে যে কাজটি করতে আপনার ভালো লাগে যে কাজ সম্পর্কে আপনার ধারণা রয়েছে, সেই কাজের উপরে যে সকল বিষয় আসে সেই ব্লগিং নিশ, বিষয় বা টপিক নির্বাচন করে একটি ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন।

যেমনটি আমি আমার এই ব্লগে টেকনোলজি নিয়ে ব্লগিং করছি কারন আমার টেকনোলজি সম্পর্কে সকল বিষয়ে ভালো লাগে এবং টেকনোলজি বিষয়ে আমি কিছু কিছু অংশ জানি যে বিষয়গুলো নিয়ে আমি আমার ব্লগে আলোচনা করে থাকি।

আমি আমার এই ব্লগে কিভাবে অনলাইন থেকে আয় করতে হয় অনলাইনে আয় করার জন্য কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হয় পাশাপাশি ব্লগিং এবং ওয়েবসাইট কিভাবে পরিচালনা করতে হয়, সেগুলো নিয়ে আলোচনা করে থাকি বলা যায় আমার এই ব্লগের নিচ্ছে অনলাইন ইনকাম এবং ব্লগিং নিয়ে আলোচনা করি ।

কয়েকটি লাভজনক সেরা ব্লগিং নিশ অনলাইনে আয় করার জন্য

Movie and Music Blog

Health Blog

News Blog

Food Blog

sports blog

Technical Blog

Digital Marketing Blog

Fashion Blog

Travelling Blog

মুভি এন্ড মিউজিক ব্লগিং নিশ Movie and Music Blogging niche

অন্যান্য ব্লগিং নিশ গুলোর মাত্র এই ব্লগিং নিশ ও অত্যন্ত জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। বর্তমান সময়ে বিভিন্ন ধরনের ওয়েব সিরিজ এবং ইন্টারনেট ভিত্তিক যেসকল মুভি এবং মিউজিক রিলিজঃ হয়ে থাকে সেই সকল মুভি এবং মিউজিক এর তথ্য উপাত্ত এবং রিভিউ করার মাধ্যমে ব্লগিং করে আয় করতে পারেন।

Health Blogging niche

হেলথ ব্লগিং অথবা স্বাস্থ্য ব্লগিং হচ্ছে এমন একটি ব্লগ ব্যবস্থা যেখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্য রিলেটেড আর্টিকেল পাবলিশ করতে পারবেন। আপনি যদি মেডিসিন বিশেষজ্ঞ হয়ে থাকেন অথবা মেডিসিন সম্পর্কে আপনার যদি ধারণা বা আইডিয়া থাকে তাহলে আপনি অবশ্যই স্বাস্থ্য ব্লগিং নিশ নিয়ে কাজ করতে চেষ্টা করুন।

এতে করে আপনার প্রাক্টিক্যালি অভিজ্ঞতা হওয়ার পাশাপাশি মানুষজনের উপকার হবে, যারা আপনার ব্লগ ভিজিটর থাকবে তারাও আপনার জন্য শুভাকাঙ্ক্ষী হবে। একটি স্বাস্থ্য রিলেটেড ব্লগিং নিশ থেকে অনেক ভালো পরিমাণে কমিশন অর্জন করা যায়। স্বাস্থ্য ব্লগ কি? what is health blog? স্বাস্থ্য ব্লগার হলেন এমন একজন লেখক যা স্বাস্থ্য এবং চিকিত্সা সম্পর্কিত ব্লগ লেখেন! আর স্বাস্থ্য ব্লগিং নিশ এমন একটি ব্লগ যা স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করে।

অর্থাৎ একটি স্বাস্থ্য ব্লগ পুষ্টি ও ডায়েট, ফিটনেস, ওজন নিয়ন্ত্রণ, রোগ, রোগ ব্যবস্থাপনা, স্বাস্থ্যকে প্রভাবিত করে এমন সামাজিক প্রবণতা, স্বাস্থ্য সম্পর্কে বিশ্লেষণ, স্বাস্থ্য ব্যবসা এবং স্বাস্থ্য গবেষণার মতো বিভিন্ন স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে। একটি স্বাস্থ্য ব্লগ ব্যবহারকারীর সংখ্যা একের অধিক হতে পারে এবং একটি অনলাইন কমিউনিটি হিসাবে পরিচালনা হতে পারে।

টেকনিক্যাল ব্লগিং নিশ Technical Blogging niche

অনেকে রয়েছে স্কুল এবং কলেজ লাইফ থেকে একটি টেকনিক্যাল ব্লগ তৈরি করে সেখানে আর্টিকেল রাইটিং করার পাশাপাশি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইনে ব্লগিং করে আয় করছেন।

ব্লগিং জগতে যত গুলো ব্লগিং নিস রয়েছে সেই ব্লগিং নিশ গুলোর মধ্যে টেকনিক্যাল ব্লগ বা টেকনিক্যাল নিশ অন্যতম। এবং অন্যান্য যেসকল ব্লগিং নিশ রয়েছে সে সকল ব্লগিং নিশ এর চেয়ে টেকনিক্যাল ব্লগ থেকে অনলাইন আয় অধিক পরিমাণে বেশি হয়ে থাকে।

তাই আমি আপনাকে রেকমেন্ট করব আপনি যদি ব্লগিং শুরু করার জন্য ব্লগিং নিশ পছন্দ করতে চান তাহলে অবশ্যই টেকনিক্যাল ব্লগিং নিশ নিয়ে ব্লগিং শুরু করুন।

ডিজিটাল মার্কেটিং ব্লগিং নিশ Digital Marketing Bloggin niche

ডিজিটাল মার্কেটিং ব্লগ অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ব্লগিং নিশ কেননা তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের সকল চাহিদা এখন ডিজিটাল প্রযুক্তির অন্তর্ভুক্ত হয়ে গেছে।

আপনি দেখে থাকবেন বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া যেমন ফেসবুক টুইটার ইনস্টাগ্রাম ইত্যাদি নানা ধরনের সোশ্যাল মিডিয়ায় এবং ইউটিউবে বিভিন্ন প্রোডাক্ট ও সার্ভিস এর বিজ্ঞাপন আসে।

সেটিও কিন্তু কোন মার্কেটার দ্বারা পরিচালিত আর যে ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান গুলো করছে তারা মূলত ডিজিটাল মার্কেটার।

what is Digital Marketing ? ডিজিটাল মার্কেটিং কি

ইন্টারনেট ব্যবস্থাকে কাজে লাগিয়ে যে ব্যবসায়িক মাধ্যম গড়ে উঠেছে তাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলে।

এককথায় বলা যায়- ডিজিটাল মার্কেটিং হল ইন্টারনেট ব্যবহার করে ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে পণ্য বা প্রোডাক্ট প্রতিষ্ঠান বা সংস্থার প্রচারনাকে বোঝায়। ইন্টারনেট ব্যবস্থা ডিজিটাল মার্কেটিং এর বড় একটি অংশ হিসেবে কাজ করে।

যেমন- গুগল, ইউটিউব, বিভিন্ন ওয়েবসাইট, ফেসবুক সহ নানান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।

জনপ্রিয় ফ্যাশন ব্লগিং নিশ  Fashion Blogging niche

বর্তমান ব্লগিং নিশ গুলোর মধ্যে ফ্যাশন ব্লগ খুবই জনপ্রিয়তা লাভ করেছে ইন্টারনেট কে কেন্দ্র করে ডিজিটাল যুগে অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে বিভিন্ন ধরনের ফ্যাশন আইটেমগুলো বিক্রয় হয়ে থাকে।

আপনি চাইলে সেসব মার্কেটের পণ্যগুলো আপনার ব্লগিং এ রিভিউ করার মাধ্যমেও ফ্যাশন ব্লগ থেকে প্রতি মাসে 5000 থেকে 6000 ডলার আয় করতে পারবেন। প্রত্যেকটি মানুষের ফ্যাশন পছন্দ এবং আপনি অবশ্যই ফ্যাশন করেন আর এই ফ্যাশন ব্লগিং নিশ আপনার ভাগ্য পরিবর্তন করে দিতে পারে।

চলুন দেখে নেই ফ্যাশন ব্লগিং কি?

পরিচ্ছেদ এবং আনুষাঙ্গিক যে সকল কিছু রয়েছে অর্থাৎ

বিউটি টিপস, লাইফ স্টাইল এবং বিভিন্ন পোশাকের বাজার দর গুণগত মান সেইসাথে কসমেটিকস জাতীয় যে সকল পণ্য রয়েছে সেগুলো নিয়ে একটি ব্লগে বিস্তারিত আলোচনা করা হচ্ছে ফ্যাশন ব্লগ। যেমন ধরুন একজন সেলিব্রেটির ফ্যাশন-লাইফ ষ্টাইল সৌন্দর্য নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় লেখালেখি করা হয়।

ট্রাভেল বা ভ্রমণ ব্লগিং নিশ Travelling Blogging niche

আপনি যদি আমাকে জিজ্ঞেস করেন যে ব্লগিং জগতের সব থেকে সহজ ব্লগিং নিশ কোনটি

তাহলে আমি বলব সেটি হচ্ছে ট্রাভেলিং ব্লগ অথবা ভ্রমণ ব্লগ কারণ আপনার দৈনন্দিন জীবনে আপনি যেখানেই ট্রাভেল ভ্রমণ করুন না কেন সেই অঞ্চল বা সেই জায়গায় ভ্রমণের অভিজ্ঞতা আপনি আপনার এই ব্লগে শেয়ার করতে পারবেন

ধরুন আপনি কোন একটি নতুন জায়গায় বেড়াতে গেলেন তো সেই জায়গা, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং অন্যান্য মানুষজন কিভাবে সেই জায়গায় যাবে, কোথায় থাকবে, তাদের কি কি পদক্ষেপ নিতে হবে সে বিষয়ে আপনি বিস্তারিত একটি ব্লগিং করলেন

এটি খুবই সহজ একটি প্রক্রিয়া যা দ্বারা ব্লগিং করার মাধ্যমে অনলাইনে একটি সুন্দর ক্যারিয়ার দাঁড় করাতে পারবেন এতে কোন সন্দেহ নেই। আর আপনি যদি ভ্রমণপিপাসু হোন আপনার যদি বিভিন্ন জায়গায় ট্রাভেল করতে ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই আপনি ট্রাভেল বা ভ্রমণ ব্লগিং নিশ নিয়ে ব্লগিং শুরু করতে পারেন। ট্রাভেল ব্লগিং কি? ট্রাভেল ব্লগিং কাকে বলে

What is travel blogging? সহজ কথায় বলতে গেলে, ট্র্যাভেল ব্লগিং একটি ভ্রমণের গল্প এবং টিপস যা কোনও ব্লগার তার ব্লগে প্রকাশ করে। একজন ট্র্যাভেল ব্লগার, যিনি ট্রাভেল রাইটার হিসাবেও পরিচিত, তিনি তার ভ্রমণ অভিজ্ঞতার কথা লেখার জন্য বিশ্বজুড়ে ভ্রমণ করেন, এবং সেই ভ্রমণ অভিজ্ঞতা গুলো একটি ব্লগের মাধ্যমে প্রকাশ করলেন। এভাবে তিনি বিভিন্ন অনলাইন এবং অফ-লাইন থেকে অর্থ উপার্জন করেন

 what is Food Blogging?

আপনি যদি খাবারের প্রতি আগ্রহী হন তাহলে আপনার জন্য খাবার এবং

রেসিপি বেশ ভাল ব্লগিং নিশ বা ব্লগ টপিক

যারা খেতে ভালোবাসে তারা প্রতিদিন গুগলে বিভিন্ন খাবার তালিকা সার্চ করে থাকে

এধরণের ব্লগে পার্মানেন্ট ভিজিটরস অনেক দ্রুত তৈরি হয়ে যায় ব্লগটিতে আপনি কুকিং,

রেসিপি, রান্নাঘরের প্রয়োজনীয় সামগ্রী, রেস্টুরেন্ট রিভিউ নিয়ে আলোচনার সুযোগ পাবেন

ব্লগটি জনপ্রিয় হলে বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট থেকে পেইড রিভিউ অফার পাবেন,

স্পন্সরশীপ পাওয়ারও সুযোগ রয়েছে। তাছাড়া, অ্যাফিলিয়েটিং এবং গুগল এডসেন্স তো থাকছেই

একটি ফুড ব্লগিং কিংবা খাবার রেসিপি ব্লগিং হচ্ছে সেই ব্লগ

যে ব্লগের মধ্যে বিভিন্ন ধরণের খাবার আইটেম এবং খাবারের

ধরণ পাশাপাশি খাবার রেসিপি বিশদ এবং বিস্তারিত আলোচনা করা হয়ে থাকে

একজন ফুড ব্লগার বিভিন্ন ধরনের রান্না এবং খাবারের অভিজ্ঞতার

সাথে,খাবারের রেসিপি গুলো একটি ব্লগে পোস্ট করেন Blogging niche

 

 

4 thoughts on “কি ধরনের নিশ বা টপিক নিয়ে Blogging niche তৈরি করবেন  ব্লগিং নিশ আইডিয়া 2021”

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.